নেপালকে হারিয়ে ফাইনালে বাংলাদেশ

০৭ ডিসেম্বর ২০১৯, ১৪:৫০

নিজস্ব প্রতিবেদক

পোখারাতে এস এ গেমসে আজ নেপালের মুখোমুখি হয়েছিল বাংলাদেশ। টস হেরে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৬ উইকেট হারিয়ে বাংলাদেশের সংগ্রহ ১৫৫ রান। জবাবে ৯ উইকেটে নেপাল তুলে ১১১ রান। এতে ৪৪ রানে জয়ের স্বাদ পান আফিফ-সৌম্যরা। এই জয়ের ফলে এস এ গেমস

শুরু থেকেই নেপালের বোলিংয়ের বিপক্ষে চাপে ছিল বাংলাদেশ। মাত্র ৫৯ রানেই ৪ টপঅর্ডার ব্যাটসম্যান হারানোর পরেও আফিফের ঝড়ো অর্ধশতকে ভর করে ১৫৫ রান তুলে বাংলাদেশ। নেপালকে হারাতে হলে এই রানের মধ্যেই আটকাতে হবে তাদের।

টসে হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে নেপালের বোলিংতোপে ৫৯ রানেই টপ অর্ডারের চার ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে চাপে পড়ে বাংলাদেশ। এরপর ব্যাটিংয়ে এসে প্রতিরোধ গড়ে তুলেন অধিনায়ক শান্ত ও আফিফ হোসাইন। চাপ সামলে দ্রুতগতিতে রান তুলতে থাকেন দুজনই। দক্ষিণ এশিয়ান গেমসে নেপালে বিপক্ষে ঝড়ো অর্ধশতক হাঁকালেন আফিফ হোসাইন। নাজমুল হোসেন শান্তর পর ইনিংসে আফিফের ব্যাটে দ্বিতীয় অর্ধশতকের দেখা পেয়েছে বাংলাদেশ। পরবর্তীতে দারুণ ব্যাটিং করে দুজনেই এগুতে থাকেন দুজনই। শান্ত ৪৮ বলে তুলে নেন নিজের অর্ধশতক। আর ঝড় তুলে মাত্র ২৫ বলে অর্ধশতক তুলে নেন আফিফ হোসাইন।

শেষদিকে টানা উইকেট হারানোয় নির্ধারিত ২০ ওভারে শেষে ৬ উইকেট হারিয়ে বাংলাদেশের সংগ্রহ ১৫৫ রান। নেপালের পক্ষে পরশ খাড়কা একাই শিকার করেন তিনটি উইকেট। এছাড়া দিপেন্দ্র সিং পান দুটি উইকেট।

১৫৬ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকেই নেপালকে চাপে ফেলে বাংলাদেশ। ১৪ রানেই ৩ উইকেট হারানো নেপাল ২০ ওভারে হারায় ৯টি উইকেট। দলপতি গয়েন্দ্র মাল্লা ৪৩ বলে ৪৩ আর দিপেন্দ্র সিং ১৩ বলে ১৬ রান করেন। অবিনাশ বোহারা ১০ বলে ১৩ রান করে অপরাজিত থাকেন। আর কোনো ব্যাটসম্যান দুই অঙ্কের দেখা পাননি। বাংলাদেশের হয়ে ২টি করে উইকেট লাভ করেন সুমন খান, তানভীর ইসলাম, সৌম্য সরকার, মাহাদি হাসান।

উল্লেখ্য যে, এর আগে মালদ্বীপ ও ভুটানের বিপক্ষে বড় জয় পায় সৌম্য ও শান্তরা। এই ম্যাচ জিতে ফাইনালে টিকেট পাবে বাংলাদেশ।

বাংলাদেশ একাদশ:

নাজমুল হোসেন শান্ত (অধিনায়ক), নাঈম শেখ, সাইফ হাসান, ইয়াসির আলী, আফিফ হোসেন, সৌম্য সরকার, তানভীর ইসলাম, হাসান মাহমুদ, সুমন খান, মাহিদুল ইসলাম ভূঁইয়া ও মেহেদী হাসান।